আজ - বুধবার, ২২ আগস্ট, ২০১৮ ইং | ৭ ভাদ্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |
সর্বশেষ: 

রামগঞ্জে দিঘীর ভাঙ্গনে ২শত পরিবার ক্ষতিগ্রস্থ

রামগঞ্জ প্রতিনিধি: লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ উপজেলার করপাড়া ইউপি ফতেহপুর দিঘীর অব্যাহত ভাঙ্গনে ২শতাধিক পরিবারের রাতের ঘুম হারাম হয়ে গেছে। গ্রামবাসীরা দিঘীর ভাঙ্গনরোধে স্থানীয় উপজেলা প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সাথে ধরনা দিয়েও প্রতিকার পারছে না।
সুত্রে জানায়,উপজেলার করপাড়া ইউপির ফতেহপুর মৌজার ১২শত একর সম্পত্তিতে অবস্থিত দিঘীতে ড্রেজার মিশিন বসিয়ে বিগত জোট সরকারের আমল থেকে শুরু করে কয়েক বছর যাবত প্রভাবশালী মহল বালু উত্তোলন করে। এতে তলদেশ গভীর হয়ে দিঘীর পাড় ভাঙ্গতে থাকে। পাড়ে বসবাসকারীরা ব্যক্তিগত অর্থায়নে গাইডওয়াল নির্মান করলেও ভেঙ্গে পড়ে যায়। কয়েক মাসের মধ্যে আবুল বাসার,রুহুল আমিনসহ ১০/১২জনের ঘাটলা,রান্নাঘর,গাইড ওয়াল,বসতঘরের অংশ ভেঙ্গে দিঘীতে পড়ে। দিঘীর পাড়ে বসবাসকারী রজ্জন আলী,অজি উল্যাহ,নুরনবী সহ কয়েকজন বলেন,৮শত একর সরকারী দিঘী মানুষের সম্পত্তি ভেঙ্গে পড়ে ১২শত একরে পরিনত হয়েছে। অব্যাহত ভাঙ্গনের পাড়ে বসবাসকারী দুই শতাধিক পরিবারের রাতের ঘুম হারাম হয়ে গেছে।
সরকারী ভাবে লিজ নিয়ে মৎস্য চাষী নজির আহম্মেদ দিঘীর পাড়ে বিশাল আকৃতি গর্ত ও পানি শুকানোর কারণে দিঘীর একাধিক ফাটলের সৃষ্টি হয়েছে। যে কোন মহুর্তে ভয়াবহ ভাঙ্গণে দিঘীর পাড়ে বাসিন্দাদের জীবন-যাপনে হুমকির আশংকা করছে।  করপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান মজিবুল হক মজিব বলেন,বিগত সময়ে ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে বালুদস্যুরা কোটি টাকার বালু উত্তোলন করে নেওয়ার কারনে দিঘীতে ভাঙ্গন শুরু হয়। শীগ্রই উপজেলার সম্বয় সভা বিষয়টি উপস্থাপন করে ভাঙ্গনরোধে ব্যবস্থায় করবো। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আবু ইউসুফ বলেন,সরেজমিনে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


প্রকাশ: ১৯ জানুয়ারি ২০১৮, ২:০১:২৯ অপরাহ্ন



 
Advertise