আজ - সোমবার, ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং | ৭ ফাল্গুন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |
সর্বশেষ: 

মার্কিন দুয়ারে বিএনপি

নিজস্ব প্রতিবেদক :  বিদেশি মিত্ররা, বিশেষ করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বিএনপিকে নির্বাচনে অংশ নেয়ার পরামর্শ দিয়েছে। যেকোন পরিস্থিতিতে নির্বাচনে অংশ নিলে বিএনপি ভাল ফলাফল করবে বলেই তাদের বিশ্বাস। নির্বাচন বর্জন বা নির্বাচন বানচাল করার মতো কোন পরিস্থিতি সৃষ্টি করা হলে তার পরিণতি বিএনপির জন্যও মঙ্গলজনক হবেনা বলেও সতর্ক করা হয়েছে। দলীয় প্রধান খালেদা জিয়া দন্ডিত হওয়ার পর কোন রকম উশৃঙ্খল, হিংসাত্মক কর্মকান্ড হতে বিরত থাকতে সুস্পষ্টভাবে বলা হয়। বিএনপির শীর্ষস্থানীয় এক নেতা নাম গোপন রাখার শর্তে বলেন, রায় ঘোষনার আগের দিন ৭ই ফেব্রুয়ারি বিএনপি মহাসচিব ফখরুল ইসলাম আলমগীর ঢাকাস্থ মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সাথে পূর্ব নির্ধারিত বৈঠকে অংশ নেন।
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ভারতের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ রক্ষাকারি বিএনপির স্থায়ী কমিটির একজন প্রভাবশালী সদস্য নাম গোপন রাখার শর্তে মার্কিন এ মনোভাব ও অবস্থানের কথা জানিয়েছেন। ঢাকাস্থ মার্কিন দুতাবাসের কূটনীতিকদের সাথে চট্টগ্রামের অধিবাসী এক স্থায়ী কমিটির সদস্য ও নরসিংদীর অধিবাসী অপর এক স্থায়ী কমিটির সদস্যের নিয়মিত যোগাযোগ রয়েছে। রাজনৈতিক বিষয়াদি নিয়ে তারা মাঝে মধ্যে বৈঠকে বসেন। যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দফতরের রাজনীতি বিষয়ক আন্ডার সেক্রেটারি টমাস এ শ্যাননের বাংলাদেশ সফরকালে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ এবং নির্বাচনসহ সামগ্রিক রাজনৈতিক বিষয় নিয়ে আলোচনা ছিল তাৎপর্যপূর্ণ। বিএনপি সংসদে নেই। তাসত্ত্বেও দলটিকে বিশেষ গুরুত্বের সাথে দেখছে মার্কিন প্রশাসন। খালেদার সাথে শ্যাননের বৈঠক এবং রাজনৈতিক বিষয়ে আলোচনা তারই প্রমান দেয়। এই বৈঠকের পর থেকেই বিএনপির নেতাদের কূটনৈতিক যোগাযোগ বৃদ্ধির নির্দেশনা দেন চেয়ারপারসন।
বিএনপির একজন শীর্ষস্থানীয় নেতা জানান, আগামী নির্বাচন এবং তাতে বিএনপির অংশগ্রহনের ব্যাপারে মি. শ্যাননের সাথে খালেদা জিয়ার আলোচনা হয়। ঢাকাস্থ মার্কিন কূটনীতিকরাও বিএনপির নির্বাচনে অংশ নেয়ার উপর গুরুত্ব দিচ্ছেন। গণতান্ত্রিক ধারাবাহিকতা সমুন্নত রাখা এবং সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ নিমূর্লে গণতান্ত্রিক শাসনের বিকল্প না থাকার কথা বলা হয়েছে। খালেদা জিয়ার নির্বাচনে অংশগ্রহণ, লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নিশ্চিত করা, নিরপেক্ষ সহায়ক সরকারের অধীনে সরকারি প্রভাব হস্তক্ষেপমুক্ত নির্বাচনের নিশ্চয়তা চায় বিএনপি। কূটনীতিকদের পক্ষে এ ব্যাপারে তাদের গভীর পর্যবেক্ষণ রয়েছে বলে জানান হয়। আস্থা প্রকাশ করা হয় যে, সরকার অবৈধ হস্তক্ষেপ প্রভাবমুক্ত নির্বাচনের নিশ্চয়তা বিধানে জাতিসংঘসহ আন্তর্জাতিক মহল থেকে সরকারকে প্রভাবিত করার কথা জানান হয়। সর্বশেষ বৈঠকে বেগম খালেদা জিয়াকে নির্বাচনের বাইরে রাখার যাবতীয় প্রক্রিয়া চলছে বলে বিএনপির পক্ষ থেকে জানান হয়। তারেক রহমানসহ বিএনপির শীর্ষস্থানীয় ও কেন্দ্রীয়, জেলার নেতাদের এবং অঙ্গ সংগঠনসমুহের নেতা-কর্মীদের গ্রেফতার, তাদের উপর নতুন করে নির্যাতনমূলক আচরনের কথাও জানান হয়। কূটনৈতিক সুত্রে জানা যায়, নির্বাচনের আগে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ডসহ যৌক্তিক অন্যান্য দাবি পূরণসহ সকলের অংশগ্রহনে সুষ্ঠু, সুন্দর, নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠানে কূটনৈতিক মহল তাদের ভূমিকা রাখবেন। সরকার শেষ পর্যন্ত একটা সম্মানজনক সমাধানে আসবে বলেও এ ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করা হয়। জানা যায়, বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং নিরপেক্ষ সহায়ক সরকারের দাবিতে কোন রকম হিংসাত্মক কর্মকান্ড পরিচালনার ব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্রসহ কূটনৈতিক মহল থেকে বিএনপিকে সতর্ক করা হয়। খালেদা জিয়ার মুক্তি ও নির্বাচনে অংশগ্রহনের যোগ্যতা অর্জনের ব্যাপারে জোরালো আইনী তৎপরতা চালানোর পরামর্শ দেয়া হয়।
 


প্রকাশ: ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ৯:০২:৪৪ পুর্বাহ্ন



 
Advertise