আজ - বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৫ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |
সর্বশেষ: 

কেউ কাউকে মাইনাস করতে পারে না নিজেদের কর্মকা-ে নিজেরাই মাইনাস হয়

একান্ত সাক্ষাৎকারে নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান
নিজস্ব প্রতিবেদক : নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান এমপি মনে করেন দেশে আগাম নির্বাচনের কোন সম্ভাবনা নেই। সে ধরনের প্রয়োজনীয়তা, কোন কারণও তিনি দেখছেন না। নির্বাচন হবে সংবিধানে নির্ধারিত সময়ে। তাতে কোন ব্যতিক্রম হওয়ার কারণ দেখি না। সেই নির্বাচনে কে আসল আর কে আসল না সে বিবেচনা তাদের। কারো অংশগ্রহণ করা না করার ওপর নির্বাচন নির্ভর করবে না। তবে আমি বিশ্বাস করি এখন যে যাই বলুন সকল দলই আগামী নির্বাচনে অংশ নেবে। আওয়ামী লীগ নেতা, খ্যাতনামা শ্রমিক নেতা, মাদারীপুরের অত্যন্ত প্রভাবশালী রাজনীতিবিদ শাজাহান খান দৈনিক কালবেলার সঙ্গে এক একান্ত সাক্ষাৎকারে উপরোক্ত কথা বলেন। দেশের বিদ্যমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি এবং আগামী দিনের সম্ভাব্য রাজনৈতিক সংকট ও সম্ভাবনা সম্পর্কে খোলামেলা কথা বলেন শাজাহান খান। মন্ত্রী বলেন, দেশের রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা যারাই নষ্ট করার অপচেষ্টা করবেন তারা নিজেরাই স্থিতিহীন হয়ে পড়বেন। যেমন হয়েছে বিগত অবরোধের সময়। মানুষ সেই বিভীষিকাময় দিনগুলো আর দেখতে চায় না। অভিজ্ঞ রাজনীতিবিদ শাহাজান খান বলেন, মানুষ ভুল করলে তার খেসারত তাকেই দিতে হয়। নিরীহ মানুষকে হত্যা করে রাজনৈতিক সফলতা আসে না। ২০১৩ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত বিএনপি-জামায়াত দেশব্যাপী যা করেছিল আজকে তারা তারই মাশুল দিচ্ছে। ২০১৪-এর নির্বাচন না করে বিএনপি যে ভুল করেছিল আজ তারই খেসারত দিচ্ছে। সন্ত্রাসী, জঙ্গি কর্মকা- করে আর যাই হোক মানুষের কল্যাণ করা যায় না। পবিত্র কোরআনের সুরা ইউনুসের ৮১ নম্বর আয়াতের উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, এই আয়াতে বলা হয়েছে, ‘আল্লাহতায়ালা সন্ত্রাস, ফ্যাসাদ সৃষ্টিকারীদের কর্মকা- সফল করেনা।’ এই আয়াতের সত্যতাই প্রমাণিত হয়। বঙ্গবন্ধু-কন্যা শেখ হাসিনার সরকারকে উৎখাত করতে খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে বিএনপি-জামায়াত দেশে যে     পৃষ্ঠা ২ কলাম ১

তা-ব, নৈরাজ্য সৃষ্টি করেছিল তাতে তাদের সফলতা আসেনি। তাদের এইসব কর্মকা- দেশের মানুষ ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করেছে। দেশের মালিক জনগণ। নির্বাচনের মাধ্যমে রাষ্ট্র পরিচালনার জন্য তারাই তাদের প্রতিনিধি নির্বাচন করবেন, এটাই বিধান। বিএনপির উচিত আগামী নির্বাচনে অংশ নিয়ে জনগণের  প্রত্যাশিত নির্বাচন সফল করা। খেলার মাঠে যেমন হারজিত থাকে, নির্বাচনেও জয়-পরাজয় থাকবে। ফল যাই হোক সকল পক্ষকে তা মেনে নিতে হবে। এর ব্যতিক্রম হলে স্বাভাবিকভাবেই নিজেদের ক্ষতি তারা নিজেরাই ডেকে আনবেন। শাজাহান খান বলেন, কেউ নির্বাচনে অংশ না নিলে নির্বাচন হবে না এমন কোন কথা নেই। নির্বাচন হবে সংবিধান সম্মতভাবে। সংবিধান অনুযায়ী আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে নির্বাচন হতে হবে। কেউ নির্বাচনে না এলে সে বিবেচনা তাদের। সরকার বিএনপিকে বিভক্ত, দুর্বল করতে যাবে কেন। এজন্য তারা নিজেরাই যথেষ্ট। আশা করি দেশ ও জনগণের স্বার্থে শেষ পর্যন্ত সকলেই নির্বাচনে আসবেন।
বিএনপির সহায়ক সরকারের দাবি প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, তারা কখনো তত্ত্বাবধায়ক সরকার, কখনো নির্দলীয় সরকারের কথা বলছে। এখন বলছে সহায়ক সরকারের কথা। জনগণের ইচ্ছার উপরই সবকিছু নির্ভর করছে। তাদের দাবির পক্ষে জনগণকে তারা সম্পৃক্ত করতে পারেননি। তার প্রমাণ সীমিতসংখ্যক কর্মী ছাড়া তাদের দাবির পক্ষে তারা জনগণকে মাঠে নামাতে পারেননি।  বেগম খালেদা জিয়াকে সরকার পরিকল্পিতভাবে রাজনীতি থেকে মাইনাস করছে বলে বিএনপির অভিযোগ সম্পর্কে আওয়ামী লীগ নেতা শাজাহান খান বলেন, এ অভিযোগ সম্পূর্ণ রাজনৈতিক উদ্দেশ্যমূলক। কেউ কাউকে মাইনাস করতে পারে না। নিজেদের কর্মকা-ে নিজেরাই মাইনাস হয়ে যায়। বিএনপি ও খালেদা জিয়া সন্ত্রাস ও জঙ্গিদের লালন করে যে ভয়ঙ্কর নৈরাজ্য, ধ্বংসাত্মক ও নিরীহ মানুষের প্রাণহরণকারি কর্মকা- চালিয়েছেন সে কারণেই রাজনৈতিক অঙ্গন থেকে তাদের মাইনাস হতে হবে। জনগণের জন্য নয়, বিএনপির মূল রাজনীতিই হচ্ছে খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানকে সন্ত্রাস, দুর্নীতির মামলা থেকে রক্ষা করা।
নৌ পরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান বলেন, নয় বছরে রাষ্ট্র পরিচালনায় শেখ হাসিনা প্রমাণ করেছেন তিনি দক্ষ, অভিজ্ঞ ও অতুলনীয়। দেশের মানুষ জাতির পিতার কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধের নেতৃত্বদানকারী ও সপক্ষ শক্তিকে ক্ষমতায় দিয়ে তার সুফল ভোগ করছে। উন্নয়নের মহাসসড়কে দেশ এগিয়ে চলেছে। আমরা দৃৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি, আগামী নির্বাচনেও দেশের মানুষ শেখ হাসিনাকে ক্ষমতায় এনে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখবেন। দেশ থেকে সন্ত্রাসবাদ, জঙ্গিবাদ চিরতরে নির্মূল করে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার ভিত্তিতে রাষ্ট্রকে এগিয়ে নেবেন। জাতিরজনক বঙ্গবন্ধুর আজীবনের লালিত স্বপ্ন সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠা করবেন।
 


প্রকাশ: ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১০:০২:৪৭ অপরাহ্ন



 
Advertise