আজ - মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |
সর্বশেষ: 

শিক্ষা এর সকল সংবাদ 

  • মনুষ্যত্বেও জিপিএ-৫ অর্জন করতে হবে

    আবদুল্লাহ মুহাম্মাদ যুবায়ের
    ত্রিশে ডিসেম্বর ২০১৭ জেডিসি, জেএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশ হয়েছে। অনুযায়ী অনুষ্ঠিত জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে ২৪ লাখ ৮২ হাজার ৩৪২ জন শিশু পরীক্ষার্থী।
    জেএসসিতে জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ লাখ ৮৪ হাজার ৩৭৯ এবং জেডিসিতে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৭ হাজার ২৩১ জন। উভয় পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পেয়েছে

  • অনুদান নয় ঋণের বোঝা

    রোহিঙ্গা শিশুদের জন্য স্কুল
    নিজস্ব প্রতিবেদক : মায়ানমার থেকে আসা শিশুদের শিক্ষার সুযোগ দেওয়ার পরিকল্পনা নিয়েছে সরকার। এজন্য প্রয়োজন প্রায় ৩শ কোটি টাকা। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের হাতে এ বাবদ অর্থ নেই। তারা উন্নয়ন সহযোগিদের কাছ থেকে অনুদান আকারে অর্থের সংস্থান করতে চায়। বিশ্ব ব্যাংক এ খাতে এগিয়ে

  • নতুন জাতীয়করণকৃত ৬৬ প্রতিষ্ঠানে কেউ পাস করেনি

    নিজস্ব প্রতিবেদক : প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষায় নতুন জাতীয়করণ করা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৬৬টিতেও কোনো শিক্ষার্থী পাস করেনি।
    প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, একজন শিক্ষার্থীও পাস করেনি এমন স্কুলের মধ্যে সরকারি স্কুল রয়েছে ১০টি, রেজিস্টার্ড বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে দুটি, অস্থায়ী রেজিস্টার্ড বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সাতটি, কিন্ডার গার্টেন ৬৮টি,

  • এবার লাগাতার অবস্থান ধর্মঘটে যাচ্ছেন ইবতেদায়ি শিক্ষকরা

    নিজস্ব প্রতিবেদক : : এবার মাদরাসা জাতীয়করণসহ ছয় দফা দাবিতে লাগাতার অবস্থান ধর্মঘটের ঘোষণা দিয়েছেন ইবতেদায়ি মাদরাসার শিক্ষকরা।
    বেতনবৈষম্য নিরসনের দাবিতে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের আমরণ অনশন, এমপিওভুক্তির দাবিতে নন-এমপিও শিক্ষকদের আমরণ অনশন, জাতীয়করণের দাবিতে এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের লাগাতার অবস্থান কর্মসূচির পর এবার ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন ইবতেদায়ি শিক্ষকরা।
    রোববার

  • জিপিএ-৫ পেয়েছে ৮৭ শতাংশ

    নিজস্ব প্রতিবেদক : মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনীতে শতভাগ শিক্ষার্থী পাস করেছে। তবে জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) পরীক্ষায় ফেল করেছে মাত্র দুজন। প্রাথমিকে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৮৭.৬৬ শতাংশ। অন্যদিকে জেএসসিতে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৮৭.০৭ শতাংশ।
    শনিবার এ তথ্য জানান কলেজের অধ্যক্ষ ড. শাহান আরা বেগম।
    তিনি বলেন,